ক্রিকেটের লাইভ স্কোর

    খেলা     সংবাদ

রূপকথা লিখেই যাচ্ছেন ফেদেরার

২১ মার্চ ২০১৭, ০১:৫১  

ফেদেরার-রাজ চলছেই। গতকাল ভাভরিঙ্কাকে হারিয়ে জিতলেন ইন্ডিয়ান ওয়েলসের শিরোপা l এএফপিপ্রথমেই নির্জলা সংবাদটা বলে ফেলা যাক। গতকাল স্বদেশি স্তান ভাভরিঙ্কাকে ৬-৪, ৭-৫ গেমে হারিয়ে পঞ্চমবারের মতো ইন্ডিয়ান ওয়েলস জিতেছেন রজার ফেদেরার। ব্যস, এটুকুতেই শেষ হয়ে যেতে পারত এ খবরটি।
বিজয়ীর নামটাই ঝামেলা বাধিয়ে দিয়েছে। চোটে পড়ে ২০১৬ সালের শেষ অর্ধেকটা কাটিয়েছেন কোর্টের বাইরে। বয়স ৩৫ হয়ে গেছে, ফেদেরারের ক্যারিয়ারের বিদায়ঘণ্টা বাজিয়ে দিয়েছিলেন অনেকেই। ভেবেছিলেন এবার শুধু অবসর নেওয়াটাই বাকি। ২০১২ সালের পর একটা গ্র্যান্ড স্লামও জেতা হয়নি, সর্বকালের সেরা টেনিস খেলোয়াড়ের শেষ দেখে ফেলেছিলেন প্রায় সবাই।
ভাগ্যিস ফেদেরার নিজে সেটা দেখেননি, কিংবা দেখলেও সেটা না মেনে শুধু মনের জোরেই ফিরে এসেছেন! বছরের শুরুতেই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রাফায়েল নাদালকে হারিয়ে জিতেছেন ক্যারিয়ারের ১৮তম গ্র্যান্ড স্লাম। সে তুলনায় কালকের জয় তো মামুলি। ক্যারিয়ারের ৯০টি শিরোপার একটিই তো! কিন্তু ফেদেরার জানাচ্ছেন তাঁর কাছে এ জয়টা কত বড়, ‘এর চেয়ে বেশি খুশি হওয়া বোধ হয় সম্ভব না! বছরটার শুরু দারুণ হলো। গত বছর কোনো শিরোপা পাইনি, ব্রিসবেন ছাড়া কোনো ফাইনালেই উঠিনি। এই যে পরিবর্তন, এটা নাটকীয়।’
এ শিরোপাটা আলাদা করেই রাখছেন ফেদেরার। বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্লাম জয়টাকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা যাঁরা ভাবছিলেন; যাঁদের মনে হচ্ছিল, এটা আসলে প্রদীপ নিভে যাওয়ার আগে ক্ষণিকের জন্য জ্বলে ওঠা; ফেদেরার তাঁদের জবাব দিয়ে দিলেন। পুরো প্রতিযোগিতায় কোনো সেটে হারেননি। শেষ ষোলোয় দেখা হয়েছিল নাদালের সঙ্গে, সরাসরি সেটে (৬-২, ৬-৩) উড়িয়ে দিয়েছেন তাঁকে। এমন পারফরম্যান্সে নিজেও বিস্মিত ফেদেরার, ‘এটা ছিল আরেকটা রূপকথার সপ্তাহ। অস্ট্রেলিয়ায় যতটা অবাক হয়েছিলাম, ততটা হইনি। তবু এখানে আবারও জেতা, এই খেলোয়াড়দের হারানোটা আমার জন্য অনেক বড় চমক।’
এ জয়েই র্যাঙ্কিংয়ের ৬ নম্বরে চলে এসেছেন, এতটা আশা করেননি নিজেও, ‘উইম্বলডনে খেলার আগে আটে পৌঁছানোই ছিল মূল লক্ষ্য।’ খেলায়ও পাওয়া যাচ্ছে পুরোনো সেই ফেদেরারের আভাস, দেখা যাচ্ছে সেসব মায়াবী ব্যাকহ্যান্ড। অ্যান্ডি মারে ও নোভাক জোকোভিচকে যেন একটা সতর্কবাণীও জানিয়ে রাখলেন। যখনই মনে হচ্ছিল, টেনিসের রাজত্বটা এখন এ দুজনের, তখনই গা-ঝাড়া দিয়ে উঠেছেন ফেদেরার। পরাজয়ের পর ভাভরিঙ্কার আবেগময় প্রশংসাকেও তাই বাড়াবাড়ি মনে হয় না, ‘তোমার কাছে বেশ কয়েকবার হেরেছি, সেগুলো মেনে নেওয়াও কঠিন ছিল। তবু অস্ট্রেলিয়ার ফাইনালে আমিই ছিলাম তোমার সবচেয়ে বড় ভক্ত।’
ও হ্যাঁ, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে সেমিফাইনালে ভাভরিঙ্কাকে হারিয়েই ফাইনালে গিয়েছিলেন ফেদেরার! এএফপি, রয়টার্স।

পাঠকের মন্তব্য (০)

মন্তব্য করতে লগইন করুন