মতামত     সংবাদ

আরও জয়ের প্রস্তুতি ও পরিবেশ সৃষ্টি হোক

শততম টেস্টে জয়ের উপহার

২১ মার্চ ২০১৭, ০০:৫৪  

নিজেদের শততম টেস্টে জয়ের আনন্দই আলাদা। কিন্তু শ্রীলঙ্কাকে তাদের নিজেদের মাটিতে পরাজিত করাটাই বাংলাদেশ জাতীয় (পুরুষ) ক্রিকেট দলের আসল কৃতিত্ব। ক্রিকেটের অভিজাতরূপ টেস্টের নবীনতম দল হিসেবে বাংলাদেশ শুধু ইংল্যান্ডকেই পরাজিত করেনি, জয়ের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দিয়ে। দেশকে এই বিরল সম্মান এবং অনাবিল আনন্দ দেওয়ায় মুশফিক-সাকিবের দলকে জানাই উচ্ছ্বসিত অভিনন্দন।
ইংল্যান্ডকে হারানো বড় না শ্রীলঙ্কাকে হারানো বড়? এর উত্তর হচ্ছে, এর আগে ইংল্যান্ডকে হারানোই সাফল্যের উচ্চতম সোপান ছিল। তবে মনে রাখতে হচ্ছে, মিরপুরের বিজয় আর কলম্বোর বিজয় এক নয়। একটি দেশের মাটিতে, অন্যটি পরদেশের নির্বান্ধব পরিবেশে। শ্রীলঙ্কায় দুই টেস্টের প্রথমটিতে বাংলাদেশের পরাজয়ের সঙ্গে দ্বিতীয়টির বিজয়ের তুলনা করলে, গল টেস্টে মুখ থুবড়ে পড়ার সঙ্গে পি সারাভানাত্তু ওভালে বীরোচিত উঠে দাঁড়ানোর পার্থক্য মাপলে এ জয়ের সত্যিকার গরিমাটা বোঝা যায়। পরাজয়কে কীভাবে দলীয় ঐকতান এবং কঠিন সংকল্প দিয়ে বিজয়ে রূপান্তরিত করা যায়, এই বিজয় তা দেখাল। এই শিক্ষা আমরা জাতীয় জীবনের আরও গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রগুলোতেও কাজে লাগাতে পারি। যৌথ শক্তিতে সবার অবদান কাজে লাগিয়ে, সঠিক দিকনির্দেশনা নিয়ে উদ্দীপ্ত হতে পারলে আরও বড় বড় অর্জন ছিনিয়ে আনা অসম্ভব হবে না।
এমন অর্জন আজ বিরল লাগলেও একসময় অবিরল ধারায় আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। তার জন্য আরও প্রস্তুতির দরকার রয়েছে। জাতীয় ক্রিকেট বোর্ডের নেতৃত্বকে পেশাদারি মনোভাব দ্বারা চালিত হতে হবে। অন্যদিকে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পাশাপাশি আমাদের আঞ্চলিক ক্রিকেট সংস্থা সৃষ্টি করতে হবে। ক্রিকেটে উজ্জ্বল সব দেশেই জাতীয় দলের জন্য প্রতিভা আহরণ করে আঞ্চলিক তথা বিভাগীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতার মধ্য থেকে। অথচ ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জেতার পর এমন আলোচনা হলেও, দফায় দফায় তারিখ বদলিয়েও এখনো সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়িত হয়নি। প্রতিটি জয়ে আমরা যে অনন্ত সম্ভাবনায় আশাবাদী হয়ে উঠি, সেই আশা ধরে রাখতে হলে দেশের অঞ্চল পর্যায়ে ক্রিকেটচর্চা ও প্রতিভা বিকাশের পরিবেশ সৃষ্টি খুবই জরুরি।
আধুনিক যুগে ক্রিকেট কেবল খেলা নয়, তা দেশের ভাবমূর্তি বাড়ানো, জনগোষ্ঠীর মধ্যে আত্মবিশ্বাস সৃষ্টি এবং জাতীয় ঐক্যের উপলক্ষ জুগিয়ে যায়। এ জন্য ক্রিকেটারদেরও ত্যাগ, সংগ্রাম ও নিরন্তর সাধনার দরকার আছে।

পাঠকের মন্তব্য (০)

মন্তব্য করতে লগইন করুন