উত্তর আমেরিকা     সংবাদ

কানাডার সাস্কাচুয়ানে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উদযাপন

সদেরা সুজন, কানাডা থেকে | ১৬ মার্চ ২০১৭, ১৭:২০

.কানাডার সাস্কাচুয়ান প্রদেশের রাজধানী রেজিনাতে জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্‌যাপিত হয়েছে। ১২ মার্চ কানাডার বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে শিশুদের চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার মাধ্যমে দিবসটি উদ্‌যাপন করা হয়।

প্রেইরী অঞ্চলের সাস্কাচুয়ানে বসবাসরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শিশুদের জন্য এ দিনটি ছিল আনন্দ, উৎসাহ ও উদ্দীপনার। বিপুলসংখ্যক শিশু ও তাদের অভিভাবকদের উপস্থিতিতে কেক কেটে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উদ্‌যাপন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মিজানুর রহমান।
এ সময় অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব (পাসপোর্ট ও ভিসা) সাখাওয়াত হোসেন, প্রথম সচিব (বাণিজ্যিক) দেওয়ান মাহমুদ, প্রথম সচিব (কনস্যুলার) অপর্ণা পাল, প্রশাসনিক কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম ও কনস্যুলার সহকারী কর্মকর্তা কামাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সার্বিক সহযোগিতা করে বাংলাদেশ-কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব রেজিনা।
.অনুষ্ঠানে মিজানুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, আমাদের জাতির পিতা। কিন্তু ভাবতেই কষ্ট হয় যে জাতির পিতার হত্যাকারী এই কানাডাতেই আছে। তাকে দেশে ফেরত পাঠিয়ে বিচারের রায় কার্যকর করার জন্য সরকারি কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চলমান রয়েছে। তিনি খুনিকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে প্রবাসীদের নিজ নিজ এলাকায় কানাডার সংসদ সদস্যদের প্রতি জোর দাবি জানানোর আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‍‘বঙ্গবন্ধুর খুনির জন্য কানাডা সেফ হেভেন হতে পারে না।’ এ সময় উপস্থিত সবাই হাইকমিশনারের বক্তব্যের প্রতি সমর্থন জানান।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সাস্কাচুয়ান প্রাদেশিক সরকারের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের সিনিয়র ইকোনমিস্ট ওসমানুর রহমান, প্রবীণ চিকিৎসক বি দত্ত, চিকিৎসক আশীষ পাল ও চিকিৎসক জামান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মাসুদুল আবেদীন। সমন্বয় করেন বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রথম সচিব অপর্ণা পাল এবং বাংলাদেশ-কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব রেজাইনা’র পরিচালনা কমিটির সদস্য সাইদ মুন্সী।
.অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান পরিবেশন করেন শিল্পী পিনু সাত্তার। তাঁর সঙ্গে ছিল একদল শিশু। ‘আমি বাংলায় গান গাই’ গানটির সঙ্গে গীতিনৃত্য পরিবেশন করেন নৃত্যশিল্পী ও শিক্ষক ইভা পিটারসন ও তাঁর একদল ছাত্রছাত্রী। এ ছাড়া গান পরিবেশন করেন হাইকমিশনের প্রথম সচিব সাখওয়াত হোসেন। কবি অন্নদা শঙ্কর রায়ের কালজয়ী কবিতা ‘বঙ্গবন্ধু’ আবৃত্তি করেন হাইকমিশনের প্রথম সচিব দেওয়ান মাহমুদ।
এরপর ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, বাংলাদেশের খুশির দিন’ এবং ‘সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু’-এ দুটি বিষয়ের ওপর শিশুদের অঙ্কিত চিত্রকর্ম ঘুরে দেখেন বাংলাদেশের হাইকমিশনার, দূতাবাসের কর্মকর্তা ও অতিথিরা।
বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উদ্‌যাপনের পাশাপাশি রেজাইনাতে প্রথমবারের মতো তিন দিনব্যাপী কনস্যুলার সেবাও দিচ্ছে বাংলাদেশ হাইকমিশন। এ নিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা কাজ করছে।
.প্রটোকল ভিজিট, বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও শিক্ষা সহযোগিতা বাড়ানোর লক্ষ্যে সাস্কাচুয়ান প্রাদেশিক সরকারের প্রিমিয়ার ব্র্যাড ওয়াল এবং বাণিজ্য, কৃষি, উচ্চশিক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী ও ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাসহ ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন হাইকমিশনার মিজানুর রহমান ও প্রথম সচিব দেওয়ান মাহমুদ। গুরুত্বপূর্ণ এ বৈঠকগুলোতেও বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে জোর দাবি উত্থাপন করেন বাংলাদেশের হাইকমিশনার।

পাঠকের মন্তব্য (০)

মন্তব্য করতে লগইন করুন