অর্থনীতি     সংবাদ

হাইটেক পার্কে বিনিয়োগকারীর জন্য একগুচ্ছ কর ছাড়

হাইটেক পার্কে বিনিয়োগ করলে শুল্কমুক্ত গাড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২১ মার্চ ২০১৭, ০০:০৬  

হাইটেক পার্কে বিনিয়োগ করলে শিল্পপ্রতিষ্ঠানকে একগুচ্ছ কর ছাড় দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। মূলধনি যন্ত্রপাতি, নির্মাণসামগ্রী থেকে শুরু করে গাড়ি আমদানি করলেও শুল্কমুক্ত সুবিধা পাওয়া যাবে। অবশ্য এ জন্য কমপক্ষে ১ কোটি ডলার বা প্রায় ৮০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।
প্রায় দুই বছর আগেই হাইটেক পার্কে কী ধরনের কর সুবিধা পাওয়া যাবে, তা নিয়ে ১১টি প্রজ্ঞাপন জারি করেছিল এনবিআর। তখন এসব পার্কে বিনিয়োগ করার মতো অবকাঠামো গড়ে ওঠেনি; বিনিয়োগ প্রস্তাবও ছিল না। অবকাঠামো নির্মাণের কাজ শেষের পথে থাকায় এখন বেশ কয়েকটি বিদেশি প্রতিষ্ঠান ও যৌথ বিনিয়োগের প্রতিষ্ঠান হাইটেক পার্কে বিনিয়োগে আগ্রহী হয়েছে। তাই এনবিআর নতুন করে ইংরেজি ভাষায় চারটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।
বাংলাদেশ হাইটেক কর্তৃপক্ষ সারা দেশে বেশ কয়েকটি আইটি পার্ক নির্মাণ করছে। এগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো কালিয়াকৈরের বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক, যশোরের শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক ছাড়াও চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী ও রংপুরে একটি করে টেকনোলজি পার্ক তৈরি করা হচ্ছে। যশোরের আইটি পার্কটি এখন বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রায় প্রস্তুত। হাইটেক পার্কে বিনিয়োগকারীদের পাশাপাশি যেসব প্রতিষ্ঠান এসব পার্কের অবকাঠামো উন্নয়ন করবে, তারাও শুল্ক-কর সুবিধা পাবে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম প্রথম আলোকে বলেন, এই ধরনের কর ছাড় দেশি–বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করবে। ইতিমধ্যে যশোরের আইটি পার্কে ৩০টির মতো বিনিয়োগ প্রস্তাব বিবেচনাধীন আছে। বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কেও অনেকেই আগ্রহ দেখাচ্ছেন।
শুল্কমুক্ত গাড়ি
এনবিআরের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, হাইটেক পার্কে বিনিয়োগ করলে ওই শিল্পপ্রতিষ্ঠানের নামে দুটি গাড়ি শুল্কসুবিধা নিয়ে আনা যাবে। এর মধ্যে একটি ২০০০ সিসি ক্ষমতাসম্পন্ন ইঞ্জিনের সেডান কার এবং একটি মাইক্রোবাস, পিকআপ ভ্যান কিংবা ডাবল কেবিন পিকআপ আমদানি করা যাবে। তবে ওই সব যানবাহন পাঁচ বছরের আগে বিক্রি করা যাবে না। শুল্কমুক্ত সুবিধায় গাড়ি আনতে হলে ওই শিল্পপ্রতিষ্ঠানকে কমপক্ষে ১ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে হবে। ১ কোটি ডলারের কম বিনিয়োগ করলে কমপক্ষে ৫০০ লোকবল কর্মরত থাকতে হবে। গাড়ির নম্বরপ্লেটে অবশ্যই হাইটেক পার্ক লেখা থাকতে হবে।
মূলধনি যন্ত্রপাতি
হাইটেক পার্ক শিল্পপ্রতিষ্ঠানের মূলধনি যন্ত্রপাতি আমদানিতে আমদানি শুল্ক, নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক, সম্পূরক শুল্ক, মূল্য সংযোজন কর (মূসক) থেকে অব্যাহতি মিলবে। এ ছাড়া নির্মাণ উপকরণ আমদানিতেও এই সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে দেশে সহজে পাওয়া যায়, যেমন এমএস রড বা বার, সিমেন্ট, প্রি ফেব্রিকেটেড বিল্ডিং, আয়রন শিট আমদানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা পাওয়া যাবে না। অফিস সরঞ্জামাদি, এয়ারকন্ডিশনার, রেফ্রিজারেটর—এসব পণ্য আনা যাবে না। শতভাগ রপ্তানিমুখী প্রতিষ্ঠান বন্ড সুবিধায় শুল্কমুক্তভাবে আমদানি ও রপ্তানি করতে পারবে।

পাঠকের মন্তব্য (১)

  • বিপ্লব ( কুয়াকাটা )

    বিপ্লব ( কুয়াকাটা )

    Pls ammend the law in parliament that " Only the general people need to pay tax, politicians(MP), businessmen, officials no need to pay any tax."
     
মন্তব্য করতে লগইন করুন