দূর পরবাস     সংবাদ

অস্ট্রিয়ায় উৎসবমুখর পরিবেশে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিবস উদ্‌যাপন

আনিসুল হক, ভিয়েনা (অস্ট্রিয়া) থেকে | ১৮ মার্চ ২০১৭, ২০:০১

বক্তব্য দিচ্ছেন মো. আবু জাফরঅস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় যথাযথ মর্যাদা ও উৎসবমুখর পরিবেশে বাংলাদেশের স্থপতি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্‌যাপন করা হয়েছে। ভিয়েনার বাংলাদেশ দূতাবাস ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অস্ট্রিয়া শাখা পৃথকভাবে দিবসটি পালন করে।

ভিয়েনার হউফসাইলের বাংলাদেশ দূতাবাসে গতকাল ১৭ মার্চ শুক্রবার বিকেলে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রবাসী বাঙালিদের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতারাসহ বিপুলসংখ্যক প্রবাসী অংশ নেন।
জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর দিবসটি উপলক্ষে প্রদত্ত রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনানো হয়।
বাণী পাঠের পর বঙ্গবন্ধুর জীবনী নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এরপর বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন ও কর্ম-নির্ভর কবিতা আবৃত্তি ও বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী অবলম্বনে শিশু-কিশোরেরা প্রবন্ধ পাঠ করে। এ ছাড়া বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন অস্ট্রিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত মো. আবু জাফর। সঞ্চালনা করেন কাউন্সেলর ও চ্যান্সারি প্রধান শাবাব বিন আহমেদ।
বাংলাদেশ দূতাবাসে শিশু-কিশোরদের হাতে পুরস্কার তুলে দিচ্ছেন সালমা আহমেদ জাফরবক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সর্ব ইউরোপিয়ান শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও অস্ট্রিয়াপ্রবাসী মানবাধিকার কর্মী, লেখক, সাংবাদিক এম নজরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের অস্ট্রিয়া শাখার সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, রাষ্ট্রদূতের সহধর্মিণী সালমা আহমেদ জাফর, আকতার হোসেন, রুহী দাস সাহা, শাহ মো. ফরহাদ, ফিরোজ আহমেদ, সিরাজ চৌধুরী, ইয়াসিম মিয়া, জান্নাতুল ফরহাদ ও গাজী মোহাম্মদ প্রমুখ।
মো. আবু জাফর বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন সাধারণ মানুষের নেতা। তাঁর আদর্শের পথে আমাদের সবাইকে চলতে হবে। তাহলেই বাংলাদেশকে আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলতে পারব। তিনি আরও বলেন, আপনারা নিজ নিজ অবস্থানে থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নে আপনাদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখুন।
এম নজরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম হয়েছিল বলেই বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে। তিনি বাঙালির আত্মপরিচয়ের প্রতীক। বাঙালির চেতনায় তিনি স্বমহিমায় সমুজ্জ্বল। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বাঙালির অহংকার কোনো দিন ফুরোবে না। বঙ্গবন্ধু আমাদের আদর্শ। আজও সব সংকটে তিনিই আমাদের প্রেরণার উৎস।
আলোচনার পর বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী শিশু-কিশোরদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন সালমা আহমেদ জাফর।
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন দূতাবাসের প্রথম সচিব মালিহা শাহজাহান।
বাংলাদেশ দূতাবাসের অনুষ্ঠানে উপস্থিতির একাংশঅনুষ্ঠানে জাতির পিতার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত এবং দেশ ও জাতির অব্যাহত সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন দূতাবাসের সহকারী কনস্যুলার জুবায়দুল হক চৌধুরী। ভোজের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

আওয়ামী লীগের অস্ট্রিয়া শাখার বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উদ্‌যাপন

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অস্ট্রিয়া শাখাও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিন যথাযথ মর্যাদায় উদ্‌যাপন করেছে। এ উপলক্ষে সংগঠনের উদ্যোগে ওই দিন সন্ধ্যায় ভিয়েনার আলটেলায় ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা ও শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান। পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম।
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন সংগঠনের সর্ব ইউরোপিয়ান শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এম নজরুল ইসলাম, অস্ট্রিয়া শাখার সহসভাপতি আকতার হোসেন, সিরাজ চৌধুরী, আওয়ামী যুবলীগের অস্ট্রিয়া শাখার আহ্বায়ক ইয়াসিম মিয়া, যুগ্ম আহ্বায়ক ফসিয়ার শেখ, সদস্যসচিব সাইদ শেখ ও জালালাবাদ সমিতির সভাপতি গাজী মোহাম্মদ প্রমুখ।
এম নজরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর জাদুকরি সম্মোহনী শক্তিই বাঙালি জাতিকে উদ্বুদ্ধ করেছিল গুলির সামনে বুক পেতে দিতে। তিনি বরাভয় দিয়েছিলেন বলেই ভয় পায়নি জাতি। তারা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে লড়াই করেছে। ২৩ বছরের পাকিস্তানি শোষণ-জুলুম-নির্যাতন-নিষ্পেষণের জিঞ্জির ভেঙে বাংলাদেশের জন্ম দিয়ে গেছেন বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিব।
আওয়ামী লীগের অস্ট্রিয়া শাখার আলোচনা সভায় বক্তব্য দিচ্ছেন এম নজরুল ইসলামখন্দকার হাফিজুর রহমান বলেন, যত দিন বাংলাদেশ থাকবে, তত দিন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বের গুণাবলি স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।
সাইফুল ইসলাম তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কনে উপজীব্য বিষয় ছিল ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ।’
উল্লেখ্য, আওয়ামী লীগের অস্ট্রিয়া শাখার উদ্যোগে ভিয়েনার বায়তুল মোকাররম মসজিদে গতকাল শুক্রবার বাদ জুমা জাতির জনকের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত এবং জাতির অব্যাহত সমৃদ্ধি ও মঙ্গল কামনা করে দোয়া করা হয়।

পাঠকের মন্তব্য (০)

মন্তব্য করতে লগইন করুন