বাংলাদেশ     সংবাদ

কারওয়ান বাজারের প্রজাপতি গুহা

কাজ শেষ না হতেই খসে পড়ছে টাইলস

নিজস্ব প্রতিবেদক | ২১ মার্চ ২০১৭, ০২:৩১  

কারওয়ান বাজারে পাতালপথ প্রজাপতি গুহায় সংস্কারকাজের পরপরই উঠে যাচ্ছে সিঁড়ির টাইলস l প্রথম আলোকারওয়ান বাজারের পাতালপথ প্রজাপতি গুহার কাজ শেষ হতে না হতেই টাইলস খসে পড়ছে। সিঁড়িগুলোও অসমতল, আবর্জনাভর্তি এবং নিরাপত্তাকর্মী নেই।
চলতি বছরের জানুয়ারিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউর কারওয়ান বাজারে প্রজাপতি গুহায় সংস্কারকাজ শুরু করে। থেমে থেমে কাজটি এখন শেষের পথে।
প্রজাপতি গুহার চারটি সিঁড়ির তিনটি খুলে দেওয়া হয়েছে। পূর্ণিমা সিনেমা হলের পাশের সিঁড়িতে কাজ শেষ হয়েছে, তবে পথচারীদের জন্য উন্মুক্ত নয়। দুই পাশে বাঁশ দিয়ে আটকে রাখা। গতকাল সোমবার দেখা যায়, সিঁড়িতে লাগানো টাইলস খুলে পড়ে আছে। কিন্তু এই সিঁড়ির কাজই সবশেষে ধরা হয়। প্রতিটি ধাপেরই টাইলস খোলা। বাকি সিঁড়িগুলোর অবস্থাও ভালো নয়। বিএসইসি ভবন ও কারওয়ান বাজারের দিকে যাওয়ার সিঁড়ি দুটিরও অনেকগুলো ধাপের টাইলস খুলে গেছে। আলগা হয়ে যাচ্ছে বাকি টাইলসগুলোও।
এর মধ্যেই ভেঙে গেছে গুহার ভেতরের সিঁড়ির কিছু কিছু জায়গা। সিমেন্ট উঠে গর্ত হয়ে গেছে। এ িঁড়ির দুপাশে দুই রকম রং। এক পাশে লাল টাইলস, অন্য পাশে কালো। সংস্কার করার পর সিঁড়িগুলো অসমতল হয়ে গেছে। একটি ধাপের সঙ্গে আরেকটি ধাপের সমান দূরত্ব নেই এবং কোনোটি চওড়া, কোনোটি সরু। পা ঠিকমতো ফেলা যায় না।
অফিসের কাজে হাসান মাহমুদ প্রায়ই কারওয়ান বাজারে আসেন। গতকাল তিনি বলেন, ‘এই কাজ নিয়ে কত কাহিনি করল। তাও ঠিকমতো বানাতে পারেনি। কাজ পুরোটা শেষ না হতেই টাইলস খুলে গেছে। তাইলে এটা কি লোকদেখানো ছিল?’ এ পথে চলাচলকারী কারওয়ান বাজারের এক ব্যবসায়ী বলেন, সিঁড়ি অসমতল হওয়ায় প্রায়ই অনেকে সমস্যায় পড়েন। ভারসাম্য না রাখতে পেরে মালামাল আনা-নেওয়া করার সময় অনেকেই পড়ে যান।
জানুয়ারির শুরুতে পাতালপথের সিঁড়িগুলো ভেঙে তিন সপ্তাহ ফেলে রাখা হয়। এরপর কাজ শুরু করে আবার ফেলে রাখা হয়। পাতালপথের এ কাজ নিয়ে প্রথম আলোতে ২৫ জানুয়ারি, ৮ ফেব্রুয়ারি ও ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদন ছাপা হয়। প্রতিবারই ডিএনসিসির অঞ্চল-৫-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম অজিয়র রহমান বলেন, এক সপ্তাহের মধ্যে ঠিক করে দেওয়া হবে। একসময় তিনি বলেছিলেন, প্রজাপতি গুহা নিয়ে তাঁরা নতুন নকশার কথা ভাবছেন। তবে রাজধানীর ব্যস্ত সড়কের এ পথ এখন কোনোরকমে শেষ করা হয়েছে, যা পুরোটা হওয়ার আগেই ভেঙে পড়ছে। গতকাল পাতালপথের কাজের ব্যাপারে জানতে চাইলে এ নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, এ কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে তাঁর কাছে এখন কোনো তথ্য নেই।

পাঠকের মন্তব্য (১)

  • Shahed Parvez

    Shahed Parvez

    " এ কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে তাঁর কাছে এখন কোনো তথ্য নেই "
     
মন্তব্য করতে লগইন করুন