বাংলাদেশ     সংবাদ

সিআইডির ব্যালিস্টিক প্রতিবেদন

হাকিমের মাথায় পাওয়া গুলি মেয়রের শটগানের

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি | ২১ মার্চ ২০১৭, ০২:৩০  

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় সাংবাদিক আবদুল হাকিম শিমুলের মাথায় যে গুলি বিদ্ধ হয়েছিল, সেটি পৌর মেয়র হালিমুল হকের শটগানের। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ব্যালিস্টিক প্রতিবেদনে এই তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে।
শাহজাদপুর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে ব্যালিস্টিক পরীক্ষার প্রতিবেদনটি ৬ মার্চ নথিভুক্ত করা হয়েছে বলে গতকাল সোমবার জানান ওই আদালত পুলিশের জিআরও মো. আতাউর রহমান। তিনি বলেন, পৌর মেয়র হালিমুল হকের ব্যবহৃত শটগানটি ব্যালিস্টিক পরীক্ষার জন্য গত ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় সিআইডি কার্যালয়ে পাঠানো হয়। সেখান থেকে পাঠানো প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাংবাদিক হাকিমের মাথায় পাওয়া গুলির লেডবলটি (সিসার বল) পৌর মেয়র হালিমুল হকের শটগানের।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহজাদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম বলেন, নিহত সাংবাদিক আবদুল হাকিমের ময়নাতদন্তের সময় মাথা থেকে পাওয়া শটগানের গুলির সিসার বলটি সংগ্রহ করা হয়। এর পাশাপাশি মেয়রের বাড়ি থেকে শটগানের ৪৩টি গুলি এবং একটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়। ব্যালিস্টিক পরীক্ষার জন্য এগুলো ঢাকায় সিআইডিতে পাঠানো হয়।
হত্যা মামলার প্রধান আসামি আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত হালিমুল হককে গত ৫ ফেব্রুয়ারি গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
আবদুল হাকিম হত্যার আরেক আসামি পৌর মেয়রের ছোট ভাই হাবিবুল হক ওরফে মিন্টুর পাইপগানও ব্যালিস্টিক পরীক্ষার জন্য ঢাকায় সিআইডি কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহম্মেদ গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ৭ মার্চ শাহজাদপুর পৌর এলাকার মনিরামপুর মহল্লায় মেয়র হালিমুল হকের বাড়ির পাশের পরিত্যক্ত ডোবা থেকে হাবিবুলের পাইপগানটি উদ্ধার করা হয়। আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের গোলাগুলির সময় তিনি এই পাইপগান ব্যবহার করেছেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন।
পুলিশ সুপার বলেন, সংঘর্ষের সময় ধারণ করা ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, মেয়রের শটগানের পাশাপাশি অন্যান্য আগ্নেয়াস্ত্র থেকেও গুলি ছোড়া হয়েছিল।

পাঠকের মন্তব্য (০)

মন্তব্য করতে লগইন করুন