বাংলাদেশ     সংবাদ

হামলাকারী যুবক আটক

ফটিকছড়িতে মসজিদে ইমামকে ছুরিকাঘাত

ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি | ২১ মার্চ ২০১৭, ০২:০৫  

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে মসজিদের ভেতরে এক ইমামকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। উপজেলার পাইন্দং ইউনিয়নের পাইন্দং গ্রামের আশরাফাবাদ দরবার শরিফের মসজিদে গতকাল সোমবার মাগরিবের নামাজের সময় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত ইমাম শাহ আলম নঈমীকে (৬০) রাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হামলাকারী যুবক ছালাহ উদ্দিনকে (২৭) আটক করেছেন মুসল্লিরা। তাঁকে পিটিয়ে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তাঁর বাড়ি পাইন্দং গ্রামে। বাবার নাম নুর মুহাম্মদ। ছালাহ উদ্দিন সম্পর্কে তাৎক্ষণিকভাবে আর কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

ইমামের ওপর হামলার কারণ নিয়ে স্থানীয় লোকজন, পুলিশ ও দরবার শরিফ কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন ধরনের তথ্য দিয়েছে। তবে মসজিদের ভেতরে নামাজের সময় এ ধরনের হামলার ঘটনাটি স্থানীয় লোকজনকে বিস্মিত করেছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 আশরাফাবাদ দরবারের খাদেম সৈয়দ মোকাম্মেল হক গতকাল রাতে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর ধারণা, এটি জঙ্গি হামলা। অবশ্য পুলিশ বলছে, এটি জঙ্গি হামলা কি না, তা তদন্ত না করে এখনই বলা যাবে না। অন্যদিকে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, দরবারের জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। হামলার পেছনে এটিও কারণ হতে পারে।

ওই মসজিদের মুসল্লিরা বলেন, নামাজ শুরু হওয়ার পর হঠাৎ পেছনের কাতার থেকে এক যুবক ইমামের পিঠে ছুরিকাঘাত করেন। এ সময় অন্য মুসল্লিরা তাঁকে ধরে ফেলেন। আহত অবস্থায় ইমামকে প্রথমে নাজিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী পাইন্দং গ্রামের মুহাম্মদ রাশেদ বলেন, হামলাকারীরা সংখ্যায় ছিল চারজন। একজন ধরা পড়েছে। অন্যরা ভিড়ের মধ্যে পালিয়ে গেছে।

এদিকে ইমামের ওপর হামলার খবর পেয়ে ফটিকছড়ি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে যুবককে উদ্ধার করতে চাইলে দরবারের ভক্তদের বাধার মুখে পড়ে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ নিয়ে আটক যুবককে জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু ইউছুফ মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, আটক যুবককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

রাত সাড়ে ১১টায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম প্রথম আলোকে জানান, ইমামকে পর্যবেক্ষণে রেখেছেন চিকিৎসকেরা।

 

পাঠকের মন্তব্য (০)

মন্তব্য করতে লগইন করুন