বাংলাদেশ     সংবাদ

‘দাবি বাস্তবায়ন হলে ৩০০ টাকায় গরুর মাংস’

নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৭:৩৪

দাবিদাওয়া বাস্তবায়ন করা হলে ৩০০ টাকায় গরুর মাংস খাওয়ানো যাবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল আলম। তিনি বলেন, ‘ভারতীয় গরু আমদানির ব্যবস্থা ঠিক করা হলে ৩০০ টাকা কেন আরও কম দামেও মাংস আমরা শহরবাসীকে খাওয়াইতে পারব।’

আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এক সংবাদ সম্মেলন শেষে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি ও ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির যৌথ উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

রবিউল আলম প্রথম আলোকে বলেন, তাঁদের দাবিদাওয়া মেনে না নেওয়া হলে সারা দেশে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট ডাকা হবে। মানা হলে ধর্মঘটের আর কোনো প্রয়োজন নেই। তিনি আশা করছেন ধর্মঘট আর লাগবে না।

রবিউল আলম বলেন, দাবি মানা এক জিনিস আর বাস্তবায়ন করা আরেক জিনিস। বাস্তবায়ন যদি করে তো একটু সময় লাগবে। যদি গরু আমদানি ওইভাবে বাস্তবায়ন করে আনা হয় তাহলে ৩০০ টাকার কমেও মাংস খাওয়ানো সম্ভব।


চার দফা দাবিতে টানা ছয় দিনব্যাপী ধর্মঘটের ডাক দেয় বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতি ও ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতি। গত সোমবার থেকে শুরু হওয়া এই ধর্মঘট আগামীকাল শনিবার শেষ হবে। এই চার দফা দাবি হলো অতিরিক্ত খাজনা আদায়ের জন্য গাবতলী হাটে ইজারাদারদের ইজারা বাতিল করাসহ হুন্ডির মাধ্যমে গরু ব্যবসার নামে ভারতে গরু পাচার বন্ধ করা ও হুন্ডি ব্যবসায়ী ‘কালা মইজা’কে বিচারের আওতায় আনা, হাজারিবাগের ট্যানারিগুলো দ্রুত অপসারণ ও চামড়ার পড়তি দাম বাড়ানো, উত্তর সিটি করপোরেশনের ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ প্রধান নির্বাহী ও প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তাদের অপসারণ ও আইনের আওতায় আনা এবং ট্যানারি শিল্প মালিকদের দুই ভাগে ভাগ করে সফল ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা এবং ব্যর্থ মালিকদের কারখানা বন্ধ করা।


রোববার তো পশু জবাই বন্ধ থাকে। সেদিনও পশু জবাই হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে রবিউল আলম বলেন, ‘তা জানি না। আমাদের শনিবার পর্যন্ত ধর্মঘট ছিল, তা পালন করেছি। শনিবারের পর থেকে আমাদের ধর্মঘট স্থগিত থাকবে, প্রত্যাহার হবে না। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মিটিং আছে রোববারে। রোববারে শহরে গরু জবাই হবে।’

ট্যানারি মালিকদের ‘সিন্ডিকেটের কারণে’ চামড়ার দাম কমে যাচ্ছে দাবি করে রবিউল আলম বলেন, গরুর চামড়া এক সময় চার থেকে পাঁচ হাজার টাকায় বিক্রি করা যেত। সেই চামড়া এখন ২ থেকে ৬ শত টাকায় বিক্রি করতে হয়। ছাগলের চামড়া একসময় ৫০০ থেকে ৬০০ টাকায় বিক্রি করা হতো। তা এখন ২০ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি করতে হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শেখ মো. আবদুল বারেক, বাংলাদেশ মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি গোলাম মোর্তুজা, ঢাকা মেট্রোপলিটন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
খাজনা নিয়ে ইজারাদার ও মাংস ব্যবসায়ীদের দ্বন্দ্ব

পাঠকের মন্তব্য (১৬)

  • শেখ আলিমুল হক

    শেখ আলিমুল হক

    ‘দাবি বাস্তবায়ন হলে ৩০০ টাকায় গরুর মাংস’--কথাটা আমি শতভাগ বিশ্বাস করি।
     
  • অরিত্র

    অরিত্র

    No for Indian beef meat, Please save Bangladeshi farmers. We don't want any Bangladeshi become involve and be killed due to cow smuggling and ruined his family for bloody beef meat. Don't want to take Bangladeshi blood suckers beef meat.
     
  • আন্দালিব

    আন্দালিব

    নির্বাচন, গনতন্ত্র, জনগন বাহানা মাত্র। কিছু লোকের কাছে ক্ষমতায় থাকা ও ক্ষমতায় যাওয়ার অন্যতম কারন এই চাঁদাবাজির দুর্দমনীয় লোভ। চাঁদাবাজি এদেশের চিরস্থায়ী অসুখ।
     
    • hidden

      বাহ! আপনি বুঝেনতো দেখছি!
        ১৭
    • আন্দালিব

      আন্দালিব

      জনাব অনিচ্ছুক, আমরা বুঝি কিন্তু আপনারা বুঝবেন কবে?
       
  • S. M. Abdul Haque

    S. M. Abdul Haque

    আমিও বিশ্বাস করি।
     
  • Shaz Ahmed

    Shaz Ahmed

    চাইলে ২৫০ টাকাতে দিতে পারবেন কিন্তু আপনাদের ৩০০ টাকা তে বেচার কলিজা এখনও হয়নি, ভাগে টান পরেছে বলে এত আন্দোলন
     
    • hidden

      ভাই, একটা গরু না পারেন বাছুর কিনে জবাই করে মাংস মেপে দেখবেন সবমিলিয়ে কেজি কত পড়ে।
       
  • biplob

    biplob

    দাবী বাস্তবায়ন হলে মানুস খাবে ৩০০ টাকায়, আর না হলে মাস্তান খাবে জনগনের টাকা!!!
     
  • Nayan

    Nayan

    খোয়াব দেখাচ্ছেন। আপনাদের এই বক্তব্য দেখে ভারতীয়রা কালেই গরুর দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। ধর্মঘট করে দাবি আদায় করেও লাভ হবে না। সেই ৫০০ টাকাই থেকে যাবে।
     
  • Mamun

    Mamun

    দাবি বাস্তবায়ন হলেও ব্যবসায়ীমহল বিভিন্ন অজুহাতে দাম কমাবেননা। তারর চেয়ে বরং দেশের গরু খাই, চাষীরা বাচুক।
     
    • Imranul Huda

      Imranul Huda

      সহমত Mamun সাহ‌েব‌ের সাথ‌ে, বাংলাদ‌েশের ব্যবসায়‌িরা দাম কমাত‌ে অভ্যস্ত নয়।
       
  • Shaz Ahmed

    Shaz Ahmed

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভাই, আমার গরুও কিনতে হবেনা বাছুরও না। এতটুকু জানি ৫০০ টাকায় কেজিতে ২৫০ গ্রাম হাড্ডি দিয়ে গরুর দাম কত পরে, তার উপর চরবি হল রেওয়াজ.. যতসব
     
  • Akkas Ali

    Akkas Ali

    ৩০০ টাকায় ১ কেজি নাকি ৮০০ গ্রাম খাওয়াবেন?
     
  • Md. Kamruzzaman

    Md. Kamruzzaman

    ইন্ডিয়ার গরু এনে বাংলাদেশের খামার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করার আবদার বন্ধ করুন। তার চেয়ে খামারিদের নানান রকম সহযোগিতা প্রদান করে বাংলাদেশেই গরুর উৎপাদন বাড়িয়ে দেশীয় মাংসের চাহিদা পূরণ করে বিদেশেও রপ্তানি করা যেতে পারে। আর এর মাধ্যমে নিজেদের স্বয়ংসম্পূর্ণতা বৃদ্ধি সহ বেকার সমস্যারও অনেকটাই সমাধান হবে। বর্তমানে অনেক বেকার যুবকই খামারের দিকে ঝুঁকছে। এটাকে শেষ করে দেয়ার ষড়যন্ত্র করবেন না। তার চেয়ে গরুর মাংস এখন একটু কম খান। এমনিতেও গরুর মাংস বেশি খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুব একটা উপকারী নয়। তাই নিজের এবং দেশের উন্নয়নে ইন্ডিয়ান গরু আমদানিকে না বলুন।
     
  • Rupom Mr.

    Rupom Mr.

    For sure, they will never reduce meat price even if government accept their demands. They are only thinking of their own benefit.
     
মন্তব্য করতে লগইন করুন