শিল্প ও সাহিত্য     সংবাদ

বিপন্নতা তাড়া করে

মিছিল খন্দকার | ১৭ মার্চ ২০১৭, ০০:১৩  

(জীবনানন্দ দাশকে)
আকাশ মেঘহীন, নীলাভ হয়ে আছে
সোনালি ডানা মনে করে—
দুপুর ধীর পায়ে—খাঁ খাঁ খাঁ প্রান্তর
হাওয়ার অভিঘাতে নড়ে।
হৃদয় খোঁড়ে কারা, পায় না খুঁজে কিছু!
ব্যথা-বেদনার গা ঘেঁষে—
কোথাও কেউ নেই, মধ্যে না থাকার
শালিক এক জোড়া এসে;
আবার উড়ে যায়। কোথাও পুড়ে যায়
মাঠের শরীরের খড়,
পাতারা সরসর বাতাসে কাঁপে আর
অপরিচিত কোনো স্বর।
দৃষ্টি থেকে দূরে, চালতাগাছে ঠেস
একাকী বসে কেউ তবে—
বছর কুড়ি কুড়ি, চলে তো গেছে বহু
কে আর মুখোমুখি হবে!

যেকোনো সন্ধ্যায়, তাহার দেখা পেলে
সাভার রাস্তার পাশে—
সে যদি শোনে তবে, কিংবা না-ই শোনে
না-বলা কথা ভেবে হাসে।
তাকে কী বলা যায়! বলব, ভাইসাব
বিপন্নতা তাড়া করে—
ভাবছি যাব কি না, যেকোনো কলকাতা
ট্রামের তলে পড়ে মরে!

 

পাঠকের মন্তব্য (১)

  • hidden

    আহারে কবি! কোলকাতা ট্রাম তলে পড়ে জীবনকবি দুঃখরক্তের প্লাবণে ভেসে যায় অথচ তারও কতকাল আগে কবির কবিতা না বোঝা নির্মম মানুষের চাপে লাল রক্তের ক্ষরণে ভরছিলো তুলতুলে হৃদয় কলস...এতোকাল বেঁচেছিলো ফণীমনসার ঝোপঝাড় আর শিশিরজলে চালতাফুল ভেজা শিশির সকালকে অদ্ভূতরকম ভেবে ভেবেই...
     
মন্তব্য করতে লগইন করুন